আইন ও অপরাধ

কয়রায় প্রকাশ্য দিবালোকে ঘর বাড়ী ভাঙচুর ও লুটপাট করায় থানায় মামলা

কয়রা প্রতিনিধি।। খুলনার কয়রার পল্লীতে সন্ত্রাসী কায়দায় প্রকাশ্য দিবালোকে ঘরবাড়ী ভাংচুর, নগত টাকা ও গহনা লুটপাটসহ গাছপালা কর্তন এবং বাড়ীর মহিলাদের শ্লীলতাহানি করায় থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনাটি কয়রা থানার মহেশ্বরীপুর ইউনিয়নের সাতহালিয়া গ্রামে গত বুধবার সকাল অনুঃ ১০ টায়। সরেজমিনে জানা গেছে, জমিজমা নিয়ে বিরোধ থাকায় জোমাত গাইন(৬০) ও তার ভাই কোপাত গাইন (৫৬) নেতৃত্বে প্রকাশ্য দিবালোকে ২০/২৫ জন দা, কুড়াল, ও লাঠিসোটা নিয়ে প্রতিবেশী মফিজুল গাজীর বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা চালায় আসামীরা। এ ঘটনায় কয়রা থানায় মফিজুল গাজীর স্ত্রী রাবেয়া খাতুন বাদী হয়ে মামলা করলে পুলিশ এজহার ভুক্ত রেজাউল গাইন নামে একজনকে আটক করেছে। সরেজমিনে গেলে এলাকার প্রত্যক্ষদর্শী মজিদ গাজী, মহাসিন, ও আনছার গাজীসহ একাধকি ব্যক্তি জানায়, দেশের বর্তমান সময়ে এ ধরনের ঘটনা অবিশ্বাসযোগ্য। কেননা প্রকাশ দিবালোকে একটি পরিবার ধ্বংস করতে আসামীরা যেভাবে দা, কুড়াল নিয়ে ছুটে এসেছিল তাতে ভেবেছিলাম দেশে আইন-কানুন বলে কিছু নেই। তারা বলেন, ঘটনার সময় বাড়ীর পুরুষরা থাকলে হয়তো লাশ হতো এবং বাড়ীর মহিলাদের উপর যে ভাবে নির্যাতন করেছে তা অমানবিক। এছাড়া ২ টি ঘর সম্পূর্ণ কুপিয়ে ধ্বংস এবং গাছগাছালী কেটে দিয়েছে। সরেজমিনে দেখা যায় ঘরের ভিতর আসবাব পত্র সব ভাংচুর করা হয়েছে এবং নগত টাকা, গহনা, ল্যাপটপ, মোবাইলসহ বিভিন্ন মালামাল লুটপাট করা হয়েছে।এ বিষয় বাদীর স্বামী মফিজুল গাজী জানায়, আসামী মজিদ,কোপাত গাইন ও তাদের নিকট আত্মীয়রা এ হামলা চালিয়েছে। তিনি বলেন, বাড়ীতে একটি গাছও জীবিত নেই দুটি ঘর কুপিয়েছে এবং মহিলাদের গলায় দা ধরে ঘরের সবকিছু লুটপাট করে নিয়ে গেছে। তিনি বলেন, গ্রামের অনেকেই দুরে দাঁড়িয়ে থাকলেও কেউ ওদের ভয়ে এগিয়ে আসেনি। এ বিষয় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই শাহাবুদ্দীন জানায়, আসামীরা পলতক আছে এবং এক জনকে আটকের পর লুটপাটের কিছু মালামাল উদ্ধার সহ হামলায় ব্যবহারিত রড ও লাঠিসোটা উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় আসামীদের বিরুদ্ধে এ ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের একাধীক অভিযোগ রয়েছে বলে জানা গেছে।